Tuesday , April 24 2018
Breaking News
Home / লাইফ স্টাইল / রাশিফল জানলে কমবে ওজন

রাশিফল জানলে কমবে ওজন

জ্যোতিষশাস্ত্র বলছে আপনার রাশি অনুযায়ী ব্যবস্থা নিলে ওজন কমতে বাধ্য। এমনকি শরীর সুস্থ রেখে জীবনকে উপভোগ করার চাবিকাঠিও নাকি আছে জ্যোতিষশাস্ত্রের হাতে। তাহলে দেখে নেওয়া যাক, কিভাবে শুধুমাত্র রাশিফলের মাধ্যমে নিজেদের ওজন কমানো যায়-

১) মেষরাশি ( ২১’শে মার্চ- ১৯’শে এপ্রিল)
মেষ রাশির জাতক বা জাতিকাকে খুবই নিয়মের মধ্যে ডায়েট প্ল্যান করতে হবে। যতই কঠিন হোক, মেষ রাশির জাতক বা জাতিকারা চ্যালেঞ্জ নিয়ে কাজ করতেই ভালবাসেন। তাই চ্যালেঞ্জ নিতে হলে শরীরকে সুস্থ রাখাও খুবই প্রয়োজন। তারা নতুন ধরণের খাবার, যেমন পুষ্টিগুণে ভরপুর খাবার খেতে ভালবাসেন। একইসঙ্গে ভালবাসেন বন্ধু বা প্রিয়জনকে সঙ্গে নিয়ে শরীর চর্চা করতে।

২) বৃষরাশি (২০শে এপ্রিল- ২০শে মে)
বৃষরাশির জাতক বা জাতিকারা একটু চঞ্চল প্রকৃতির হন। ফলে প্রতিদিন নিয়ম মেনে ব্যায়াম বা জিম করা এবং নিয়ম মেনে স্বাস্থ্যকর খাবার খাওয়া তাদের জন্য কিছুটা হলেও একটু একঘেয়ে ব্যাপার।

৩) মিথুনরাশি (২১’শে মে – ২০’শে জুন)
মিথুনরাশির জাতক বা জাতিকারা দৌড়ে বেড়াতে ভালবাসেন। যার ফলে, এদের কাছে দৌঁড়ে ওজন কমানো খুবই উপকারি একটি উপায়। সারাদিন দৌড়ঝাঁপ করলেও এরা সহজে ক্লান্ত হয়ে পরেন না। ফলে এক জায়গায় বসে থাকার মতো মানসিকতা তাদের একদমই নেই।

৪) কর্কটরাশি ( ২১’শে জুন- ২২’শে জুলাই)
কর্কট রাশির জাতক বা জাতিকারা বেশ ঘরকুনো হয়ে থাকেন। ফলে ঘর, রান্নাঘর গোছাতেই এরা বেশি পছন্দ করেন। পরিবারের সকলে মিলে জিম বা ব্যায়াম করলে এরা সহজেই তাদের সঙ্গে তাল মেলাতে চাইবেন। ফলে, পরিবারের সকলের জন্য তো বটেই, নিজের জন্যও স্বাস্থ্যকর খাওয়া দাওয়া এবং যত্ন নেওয়ার মানসিকতা তৈরি হবে।

৫) সিংহরাশি (২৩’শে জুলাই- ২২শে আগস্ট)
সিংহরাশির জাতক বা জাতিকারা সবসময় নিজেকে শ্রেষ্ঠ জায়গায় দেখতে ভালবাসেন। ফলে এদের ওজন কমানোর জন্য সবথেকে ভাল এবং উপকারি উপায় হল ফুটবল বা বাস্কেটবলের মতো খেলার ব্যবস্থা করা
৬) কন্যারাশি (২৩’শে আগস্ট- ২২’শে সেপ্টেম্বর)
কন্যারাশির জাতক বা জাতিকারা সবকিছুতে খুব তাড়াতাড়ি সফল হতে চান। ফলে কোনও কাজ শুরু করার কিছু দিনের মধ্যে সফল না হলে, এরা সেই কাজের প্রতি ভালবাসা হারিয়ে ফেলেন। তাই এদেরকে সব সময় উৎসাহিত করতে হয়, যাতে এরা স্বাস্থ্য বজায় রাখতে ব্যায়াম, জিম বা খাবারের প্রতি মনোযোগী হতে পারেন।

৭) তুলারাশি (২৩শে সেপ্টেম্বর- ২২শে অক্টোবর)
তুলারাশির জাতক বা জাতিকারা কোনোভাবেই খুব বেশি খাটনি করে সাফল্য পেতে চান না। এরা কোনও কাজে এমন ভাবে নিজেদের জড়াতে চান না, যেখানে এদের ব্যক্তিগত জীবন মুল্য হারিয়ে ফেলে। তাই ওজন কমাতে গিয়ে এরা যে খুব বেশি কষ্ট করবে, সেটা ভাবার কোনও কারণ নেই। তাই এদের উৎসাহিত করার জন্য একজন বন্ধুর খুব দরকার হয়ে পরে। তাকে সঙ্গে পেলে আনন্দ, গল্পের মধ্যে দিয়ে এরা শারীরিক কসরত করতে পারে।

৮) বৃশ্চিকরাশি (২৩শে অক্টোবর- ২১শে নভেম্বর)
ওজন কমাতে হলেও এরা ব্যায়াম বা জিম এমনভাবে করেন, যেন এটা ছাড়া তাদের জীবন অসম্পূর্ণ। এদের মধ্যে লড়াই করার ক্ষমতা থাকায় এরা শরীর চর্চার জন্য বক্সিং, ক্যারাটে, সাঁতারের মতো বিষয়গুলি নিয়েও ইচ্ছুক থাকেন।

৯) ধনুরাশি (২২শে নভেম্বর- ২১শে ডিসেম্বর)
আনন্দের মধ্যে দিয়ে শারীরিক কসরত করতে পছন্দ করেন এই রাশির জাতক বা জাতিকারা। ধনু রাশির জাতক বা জাতিকাদের মধ্যে আরও একটি গুণ হল, এরা নতুন ধরণের কাজ বা চ্যালেঞ্জ নিতে পছন্দ করেন। তাই একঘেয়ে একরকমের ব্যায়াম নয়, বরং নতুন ধরণের ব্যায়ামই এদের কাছে বেশ প্রিয় হবে।

১০) মকররাশি (২২’শে ডিসেম্বর থেকে ১৯শে জানুয়ারি)
মকররাশির জাতক জাতিকারা যে কোনও কাজে ভীষণ মনোযোগী হয় এবং সেই কাজের প্রতি যত্নশীল হয়ে থাকেন। তাই একইরকমভাবে ওজন কমানোর ক্ষেত্রেও এরা খুবই যত্নশীল এবং দায়িত্ব নিতে পারে। এরা খুব সহজেই বাইরের খাবার বন্ধ করে দিতে পারে, মিষ্টি বা কোল্ড ড্রিঙ্কও বাদ দিতে পারে জীবন থেকে।

১১) কুম্ভরাশি (২০শে জানুয়ারি- ১৮ই ফেব্রয়ারি)
এরা সব সময় নতুন কিছু করতে চায়। এমনকি, যে কোনও কাজে অন্য সবার থেকে আলাদা ভাবে নিজেকে প্রমাণ করতে চায়। এরা ওজন কমাতে গেলেও নতুন নতুন ব্যায়াম বা কাজে নিজেকে ডুবিয়ে রাখে। ফলে, অন্য সবার থেকে নিজের একটি আলাদা পরিসর এবং পরিচয় এরা খুব তাড়াতাড়ি তৈরি করতে পারে।

১২) মীনরাশি (১৯শে ফেব্রুয়ারি- ২০শে মার্চ)
মীনরাশির জাতক জাতিকাদের মানসিক শক্তি অত্যন্ত বেশি। তা আরও শক্তিশালী হয়ে ওঠে যখন তা শারীরিক কসরতের সঙ্গে জড়িত। এরা ভীষণই প্রকৃতিপ্রেমী হয়। ফলে, প্রকৃতির মাঝে যোগ ব্যায়াম, ধ্যান বা অন্যান্য শারীরিক কসরত করতে এরা ভালবাসেন। এছাড়াও, মীনরাশির জাতক বা জাতিকারা সাঁতারের মধ্য দিয়েও নিজেদের শরীরকে সুস্থ রাখতে পারেন।

Loading...